Monday , October 21 2019
Breaking News
Home / স্বাস্থ্য / সাজনার বিস্ময়কর উপকারিতা
সাজনার বিস্ময়কর উপকারিতা

সাজনার বিস্ময়কর উপকারিতা

আমাদের সকলের পরিচিত এই সাজনা গাছটির নেয়ামত সম্পর্কে ৮০% লোক জানেন না। সাজনা গাছের পাতা ও সাজনা এর বিস্ময়কর উপকারিতা সম্পকে জানলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন । আল্লাহতালার এই নেয়ামত সম্পকে সকলেরই জানা অবশ্যই দরকার । সাজনা গাছের মধ্যে হাজার হাজার ঔষধি গুন আছে , যা জানতে পারলে আমাদের সকলের খুব উপকারে আসবে ইনশাআল্লাহ । সাজনা গাছের পাতার মধ্যে আল্লাহ তালা ৩০০ রোগের ঔষধ দিয়েছেন , তারমধ্যে বর্তমানে ডায়বেটিস, গেঁজ ,আলসার এবং ক্যান্সার রোগের কোষ ধংস করার বড় গুন আছে । ১০০ গ্রাম সাজনা পাতার মধ্যে আছে –

১। দই এর চেয়ে ৯ গুন প্রোটিন বেশি আছে।

২। গাজরের চেয়ে ১০ গুন বেশি ভিটামিন আছে।

৩। কলার চেয়ে ১৫ গুন বেশি পটাশিয়াম আছে ।

৪। দুধের চেয়ে ১৭ গুন বেশি ক্যালসিয়াম আছে।

৫। কমলার চেয়ে ১২ গুন বেশি ভিটামিন সি আছে।

৬। পালং শাক থেকে ২৫ গুন বেশি আয়রন আছে।

সাজনা গাছের পাতা শাক হিসাবে অনেক জনপ্রিয় । যা মানব শরীরের জন্য অনেক প্রয়োজন । বতমান বিশ্বে সাজনা গাছের পাতার অনেক চাহিদা, আর হ্যাঁ সাজনা গাছের পাতা খাওয়া যায় অন্য শাকের মতোই ভাজি করে, স্বাদ অনেক ভালো । অনেকটা হেচি/হেসি/পানি কলসের শাকের মতো । এছাড়াও সাজনার পাতা টেলে পেঁয়াজ কুচি, রসুন , কাঁচামরিচ হালকা তেলে হলুদ লবণ দিয়ে ভেজে গরম ভাতের সাথে খেয়ে দেকতে পারেন, এতে শরীরের পানি যমা গায়ে ব্যাথা ইনশাল্লাহ কমে যাবে। সাত থেকে আট দিন খেতে হবে যাদের শরীরে পানি যমে পা ফুলে যায় তাদের খুব তাড়াতারি ভালো হবে।

সাজনা গাছ লাগানো অনেক সহজ , সাজনা গাছের ডালা সমান ভাবে কেটে মাটিতে লাগিয়ে দিলে কিছু দিনের মধ্যে গাছ হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ । আর তাই প্রত্যেকে একটি করে সাজনা গাছ নিজ বাড়ি কিংবা রাস্তা ঘাটে লাগাতে পারেন। সাজনার মধ্যে যে এতো খনিজ উপাদান থাকে আর সাজনা যে মানবদেহের জন্য এতো উপকারী তা অনেকেই জানেনা। অথচ অনেক বাড়ীতেই এই গাছ এমনিতেই পরে আছে। ঢাকার কাঁচাবাজার গুলোতে সাজনার ডাটা সবব্জি হিসাবে বিক্রি হয়। কিন্তু আমরা অনেকে এই ডাটা গুলো খাইনা। তাই বাজার থেকে এই গুলো কিনে আনাও হয় না। আর প্রতি বছর গ্রামের বাড়ীতে সাজনা গাছের মধ্যেই ডাটা গুলো শুকিয়ে যায় । কিন্তু আবার অনেক গ্রামে হিন্দু প্রতিবেশীরা সাজনার কচি পাতা ঘি এবং  শিং মাছের ঝোল রান্না করে সদ্য প্রসূতি মাকে খাবার দিয়ে থাকেন। সাজনা গাছের ছালের ভর্তা ও অনেকে খুব পছন্দ করে খেয়ে থাকেন। এছাড়া সাজনার ফুলের সাথে ডিম ভেজেও খেয়ে দেখতে পারেন |

ইন্টারনেটে দেখতে পাওয়া যায় সাজনার বহুবিদ ব্যাবহার , সাজনার পাতা দিয়ে জুস যেমন বানিয়ে পান করা যায় , তেমনি করে শুকনা পাতা দিয়ে চা বানিয়েও পান করা যায়। পাতাকে শুঁকিয়ে গুড়ো করেও ঔষধ হিসেবে ব্যাবহার করা যায় , উন্নত বিশ্বে সাজনা পাতার গুঁড়া দিয়ে ক্যাপ্সুল / টনিক বানিয়ে বাজারে বিক্রি হচ্ছে । এমনকি সাজনার বীজ থেকে বেল ওয়েল নামক উন্নতমানের তেলও তৈরি করা হয়। এই গাছ মানব শরীরে যেমন হরর্মন বর্ধন করতে পারে ,তেমনি পারে মায়েদের বুকের দুধ বাড়িয়ে দিতে, সাজনার পাতার রস খেলে শারীরিক শক্তি বারে আহারেও রুচি বাড়ে । সাজনার মধ্যে আছে ভিটামিন এ , বি, সি, নিকোটিনিক এসিড ,এমানো এসিড , প্রোটিন ও চবি, কার্বোহাইড্রট , গ্লাইক্যারোটিনিস ইত্যদি উপাদান ।

ইংরেজিতে সাজনার নাম ড্রামস্টিক কিংবা Horse Radish Tree । বৈজ্ঞানিক নামঃ Moring Oleifera Lam । আমাদের দেশে সাজনা সবজি হিসাবে ব্যাবহার হলেও ,সারা বিশ্বে সাজনা একটি অতি প্রয়োজনীয় জীবন রক্ষাকারী উদ্ভিদ হিসেবে পরিচিত ।

 

ভারতীয়রা এই এত উপকারি সাজনা পাতা দিয়ে সুপ তৈরি করে খেয়ে থাকেন। সাজনা বসন্ত রোগও প্রতিরোধ করতে পারে । সর্দি কাশিতে যকৄতের কার্যকারিতায় , কৄ্মি প্রতিরোধে সাজনা বেশ ফলদায়ক । শরীরের ব্যাথা নাশক ,হজম শক্তি বর্ধক , রক্তের সংবহনতন্তের ক্ষমতা বর্ধন , উচ্চ রক্তচাপ কমায় ,রক্ত স্বল্পতা দূর করে,  ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ করে ,হাপানি রোগ নিরাময় করে। বাত রোগও নিরাময় করে।

কিন্তু দুঃখের বিষয় এমন একটি মহা উপকারী ঔষধী উদ্ভীদ আমাদের দেশে কোন গুরুত্ব পাচ্ছে  না । এই বিষয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে আজকের এই পোস্ট। যারা সাজনার এই বহুবিধ উপকারিতার তথ্য না জানেন, তারা এই পোস্ট এর মাধ্যমে জেনে উপকৃত হবেন ইনশাল্লাহ ।

About moktokotha

Check Also

অর্জুনের উপকারিতা

অর্জুনের উপকারিতা

অর্জুন গাছের ছাল বা নির্যাস আপনার স্বাস্থ্য এবং সুস্থতায় কতটুকু উপকারী হতে পারে, আসুন জেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *